যৌন সহিংসতার শিকার পাঁচ জনে একজন নারী।

কালের সমাচার ডেস্ক।

আগের তুলনায় বেড়ে চলেছে সুইজারল্যান্ডে যৌন সহিংসতার ঘটনা।

বিশেষ করে নারীদের মধ্যে যৌন সহিংসতার শিকার হচ্ছে পাঁচ জনে একজন।

এ তথ্য প্রকাশ করেছে দেশটির মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি সুইজারল্যান্ড।

গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এক গবেষণা ফলাফলে দেখানো হয়, যৌন হয়রানির শিকার সে দেশের ২২ শতাংশ নারী।

যাদের মধ্যে নিজেদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য হয়েছেন ১২ শতাংশ নারী।

অ্যামনেস্টি সুইজারল্যান্ডের পরিচালক ম্যানন চিক বলেন, গবেষণার ফলাফল আঁতকে ওঠার মতো।

একেবারেই কম সংখ্যক নারী পুলিশের কাছে এদের মধ্যে অভিযোগ করে থাকে।

সাড়ে চার হাজার নারীকে গবেষণা করে তথ্য সংগ্রহের পর দেখা গেছে, নিজেদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন সহিংসতার ব্যাপারে তাদের মধ্যে অর্ধেক মুখ খুলতে চান না।

যৌন সহিংসতার শিকার নারীদের মধ্যে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন কেবল আট শতাংশ।

৬০ শতাংশ নারী বলেছেন, তারা যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন অহেতুক যোগাযোগ, জড়িয়ে ধরা ও চুম্বন করার মতো ঘটনার মাধ্যমে।

এদিকে গত বছর পুলিশের কাছে এক হাজার দু’শ ৯১ জন যৌন হয়রানির শিকার হয়ে অভিযোগ করেছেন।

তাদের মধ্যে অনেকেই ধর্ষণের শিকার হওয়ারও অভিযোগ করেছেন।

তবে সে দেশে যৌন সহিংসতার বিচারে কঠোর আইন নেই।

কেবল প্রমাণ সাপেক্ষে ধর্ষণের ঘটনা কিছুটা কঠোরভাবে দেখা হয়।

সে দেশে গত বছর দাবি ওঠে, ধর্ষণ ছাড়াও যেন পরিষ্কারভাবে যৌন হয়রানির বিষয়টাকে সংজ্ঞায়িত করে বিচারের বিধান রাখা হয়।

সে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের প্রতি অ্যামনেস্টি সুইজারল্যান্ড আবেদন জানিয়েছে, ধর্ষণ ছাড়াও যেন আলাদাভাবে যৌন হয়রানির ঘটনাকে সংজ্ঞায়িত করা হয়।

সেই সঙ্গে আবেদন জানানো হয় যৌন হয়রানির ঘটনাকেও শাস্তিযোগ্য বিবেচনা করে আইন প্রণয়নের।