মিজানুর ৭ বছর ধরে শিকলবন্দি!

কালের সমাচার ডেস্ক।

মিজানুর রহমান (২২) মাদকের ছোবলে সাত বছর ধরে শিকলবন্দি জীবন কাটাচ্ছেন।

তার মা-বাবা ঘরের বারান্দার একটি কক্ষে খুঁটির সঙ্গে শিকলে বেঁধে রেখেছেন।

মিজানুর শিকল থেকে মুক্তি পেতে ছটফট করেন। কেউ তার চিৎকারে এগিয়ে আসে না।

এভাবেই সাত বছর কেটে গেছে।

এ ঘটনা ঘটে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় মুশলী ইউনিয়নের কাউয়ার গাতি গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, মো. নুরু মিয়া ও হেলেনা বেগমের একমাত্র ছেলে মিজানুর রহমান।

মিজানুর সঙ্গদোষে মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন।

মা হেলেনা বেগম জানান, ছেলে পঞ্চম শ্রেণিতে পরা অব্জথায় তার আচরণের পরিবর্তন দেখে মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে তাদের।

বাধ্য হয়ে ১৫ বছর বয়সে ছেলেকে থানায় দেয়া হয়। ৬ মাস জেল খাটার পর মিজানুর জামিনে মুক্ত হয়।

কিন্তু বাড়িতে এসে কিছুদিন ভালো থাকার পর সেই আগের মতোই হয়ে যায়।

তিনি বলেন, ‘ছেলে আমাদের মারধর করে। তাই নিরাপত্তহীনতার কারণেই তাকে শিকল দিয়ে বেঁধেছি।

অর্থের অভাবে ছেলের চিকিৎসা করানো এখন দুঃসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

মাদকাসক্ত ছেলেটিকে স্থানীয় সমাজসেবক আতাউর রহমান বাচ্চু উদ্ধার করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য প্রশাসন ও বিত্তবানদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

নান্দাইল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাদ্দেক মেহেদী ইমাম এ বিষয়ে বলেন, শিকলে বাঁধা থেকে মুক্ত করে যুবককে উপজেলা সমাজকল্যাণ কার্যালয়ের রোগী কল্যাণ তহবিল থেকে অর্থ সহযোগিতা নেয়া হবে।

এর পর তাকে মাদকাসক্ত নিরাময়কেন্দ্রে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।